নিহার

৭২/২. নিহার
Espying (অ্যাস্পাইং)/ ‘مشاهدة’ (মুশাহিদা)

ভূমিকা (Prolegomenon)
এটি বাঙালী পৌরাণিক চরিত্রায়ন সত্তা সারণী এর মনোযোগ পরিবারের গুরুত্বপূর্ণ বাঙালী পৌরাণিক উপমান পরিভাষা। এর বাঙালী পৌরাণিক মূলক সত্তা মনোযোগ। এর বাঙালী পৌরাণিক রূপক পরিভাষা নিরীক্ষ। এর বাঙালী পৌরাণিক চারিত্রিক পরিভাষা বীক্ষণ এবং এর বাঙালী পৌরাণিক ছদ্মনাম পরিভাষা ধনুর্বিদ্যা

অভিধা (Appellation)
নিহার (বাপৌছ)বি হিমানী, তুষার, বরফ, শিশির, কুয়াশা, তুহিন, হিম, কুজ্ঝটিকা।
নিহার (বাপৌউ)বি দেখা, দর্শন, অবলোকন, নিহারণ, নিরীক্ষণ, দর্শনকরণ, নিরীক্ষকরণ, দৃষ্টিপাত, espying, ‘مشاهدة’ (মুশাহিদা) (একনিহার) ‘ﺑﺬﺮﻖ’ (বজরক্ব), attention, ‘ﻋﻨﺎﻴﺔ’ (ইনাইয়া) (শ্ববি) গুরুপাঠ, গুরুমন্ত্র, গুরুবাক্য, গুরুবাণী, কামকৌশল, বায়ুকৌশল, রতীনিয়ন্ত্রণ কৌশল, রমণের সময় নাকের বায়ুগতি সঠিককরণ, মনে মনে গুরুর ধ্যানকরণ (ইপ) ইসমেআজম (.ﺍﺴﻢ ﺍﻋﻇﻢ), জিকির (.ﺬﻜﺮﺓ), লিহাজ (.ﻟﺤﺎﻈ) (ইংপ) targets (দেপ্র) এটি বাঙালী পৌরাণিক চরিত্রায়ন সত্তা সারণী এর মনোযোগ পরিবারের বাঙালী পৌরাণিক উপমান পরিভাষা বিশেষ (সংজ্ঞা) . কোনকিছুর প্রতি একনিবিষ্টতাকে মনোযোগ বা রূপকার্থে নিহার বলা হয়. মৈথুনের সময়ে যথাযথভাবে অষ্টাঙ্গ ব্যবহার করে শুক্রপাত বন্ধ রাখার কৌশলকে মনোযোগ বা রূপকার্থে নিহার বলা হয় (বাপৌছ) ধনুর্বিদ্যা (বাপৌচা) বীক্ষণ (বাপৌউ) নিহার (বাপৌরূ) নিরীক্ষ (বাপৌমূ) মনোযোগ।

নিহারের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্ধৃতি (Some highly important quotations of espying)
১.   “আগে কপাট মারো কামের ঘরে, মানুষ ঝলক দিবে রূপ নিহারে।” (পবিত্র লালন- ৬৭/১)
২.   “দেখবি যদি স্বরূপ নিহারা, তবে মনের মানুষ পড়বে ধরা।” (পবিত্র লালন- ৫৪২/১)
৩.   “যেজন দেখেছে অটল রূপের বিহার, মুখে বলুক না বলুক, সে থাকে ঐরূপ নিহার।” (পবিত্র লালন- ৮৩৫/১)
৪.   “সদা মন থেকোরে হুঁশে, মানুষ ধর রূপ নিহারে, আয়না আঁটা রূপের ছটা, চিলেকোঠায় ঝলক মারে।” (পবিত্র লালন- ৯০৭/১)

নিহারের সাধারণ উদ্ধৃতি (Some ordinary quotations of espying)
১.   “অধর ধরার এমনই ধারা, গুরু শিষ্য ঐক্য করা, চৈতন্যরূপ নিহার করা, জানলে হয় করণ সারা।” (পবিত্র লালন- ৯২৯/২)
২.   “অযোনি সহজরূপ সংস্কার, স্বরূপে নয়ন করে নিহার, দেখরে স্বরূপ কারে কয়, অবোধ লালন তাই জানায়।” (পবিত্র লালন- ৬৬/৪)
৩.   “আইন মুয়াফিক্ব নিরীক্ষ দিতে মন, কেন এত আড়িগড়ি এখন, পত্তন যে সময়- লেখা হয় জমায়, নিহার করে দেখ নাই ভেবে।” (পবিত্র লালন- ২৩২/৩)
৪.   “আকার সাকার নাই নিরাকারে, অনন্ত উদয় নির্জন ঘরে, এক নিহারে রূপ বিনারে, তাই দেখা যায়।” (পবিত্র লালন- ৮৫২/৩)
৫.   “এক নিহারে থাকরে মন আমার, ভজন করো না দোন খোদার, লালন বলে একা খেলে, ঘটেপটে সব জায়গায়।” (পবিত্র লালন- ৮৫২/৪)
৬.   “কয় হরফ মিলে বজরক্ব, কী কী মান বলি তারই, না জেনে তার নিরীক্ষ নিহার, পড়েশুনে কী করি।” (পবিত্র লালন- ৩৭১/২)
৭.   “করে বিবির নিহার রাসুল আমার, কই ভুলেছেন রাব্বানা, জাত সিফাতে দুস্তি করে, কেউ কাউরে ভুলে না।” (পবিত্র লালন- ২৬৮/১)
৮.   “কোথায় বা শরার টাটি, আশিক্বে বেভুল সেটি, মা’শুক্বের চরণ দুটি, নয়নে আছে নিহারা।” (পবিত্র লালন- ১৮৫/২)
৯.   “গুরু যার আছে নিহার, ধরতে পারে অধর, সে অনায়াসে, মুর্শিদ খোদা ভাবলে জুদা, পড়বি প্যাঁচে।” (পবিত্র লালন- ৮০১/২)
১০. “তিন মহাজন বসে একঘরে, মন বাঁধা এক নিহারে, তরল-মানুষ ধরবি যদি, ভাঙ্গো দেখি বেদের বেড়া।” (পবিত্র লালন- ৭৭০/৩)
১১.  “দিল খোঁজে দরবেশ যারা, রূপ নিহারি সিদ্ধ তারা, লালন কয় আমার খেলা, ‘ডাণ্ডাগুলি’ সার হলোরে।” (পবিত্র লালন- ৯০৭/৪)
১২.  “দেখ রে মন ব্রহ্মাণ্ডের পরে, সদাই সাঁই বিরাজ করে, অখণ্ডরূপ নিহার করে, বসে থাক সে নিরীক্ষ ধরে।” (পবিত্র লালন- ৬২৫/২)
১৩. “নজর একদিক গেলে, আর দিক অন্ধকার হয়, নূরে নূরে দুটি নিহার, কেমনে ঠিক রাখা যায়।” (পবিত্র লালন- ৫৬৯/১)
১৪. “নর নারীর ভাব থাকতে, পারবি কী সে ভাব রাখতে, আপনার আপনি হয় ভুলতে, যেজন গৌররূপ নিহারা।” (পবিত্র লালন- ২৪৭/৩)
১৫. “নাম ছেড়ে রূপনিহারা, সর্বজয়ী সাধক তারা, সিরাজ সাঁইজি কয় লালন গোঁড়া, এলিগেলি কিসের লেগে।” (পবিত্র লালন- ৫২/৪)
১৬.  “নিভিয়ে মদনজ্বালা, অহিমুণ্ডে করগে খেলা, উভয় নিহার ঊর্ধ্বতলা, প্রেমের ঐ লক্ষণ।” (পবিত্র লালন- ৮৮৭/২)
১৭. “নিহারে গোলমাল হলে, পড়বি মন কু’জনার ভোলে, আখিরে গুরু বলে, ধরবি কারে তরঙ্গ মাঝার।” (পবিত্র লালন- ৮৩৫/৩)
১৮. “পাপীতাপী করতে তারণ, নাম ধরেছে পতিতপাবন, সে ভরসায় আছি যেমন, চাতক রূপে মেঘ নিহারি।” (পবিত্র লালন- ৩৫৪/৩)
১৯.  “পাবিরে মন স্বরূপদ্বারে, খুঁজে দেখ রে মন, বজরক্বের পর নিহার করে।” (পবিত্র লালন- ৬২৫/১)
২০. “বজরক্বে যার নাই নিহারা, আখিরে সাঁইরূপ চিনবে না তারা, রাসুল বলছে বারবার- জানা গেল তার, হাদিস মাঝারে।” (পবিত্র লালন- ৪৬৩/২)
২১.  “বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি, ঘরের মটকাতে অধর সকলি, লালন বলে ঐ-রূপের নিহার নিলি, সাঁই অনুরাগী যারা।” (পবিত্র লালন- ৪৩১/৩)
২২. “বাহ্য কাজ ত্যাজ্য করে, নয়ন দুটি রূপের ঘরে, সদাই থাকে ঐরূপ নিহারে, শয়নে স্বপনে কভু সে রূপ, ভুলতে না পারে।” (পবিত্র লালন- ৭১৪/২)
২৩. “ব্রহ্মাণ্ডের জীবন বারি, শাপ বিমোচন হয় সবারি, বরাবরি, সিরাজ সাঁইজি কয়রে লালন, চেনে তোর মহাজন থাক নিহারি।” (পবিত্র লালন- ৬৯৪/৪)
২৪. “ভাব দিয়ে খুলো ভাবের তালা, দেখবি মানুষের লীলাখেলা, ঘুচে যাবে শমনজ্বালা, থাকলে ঐরূপ নিহারে।” (পবিত্র লালন- ৮৫/২)
২৫. “মুর্শিদরূপ আর আলেক-নূরী, ভিন্ন মনে কেমনে করি, স্বরূপ নিহারা, লালন বলে স্বরূপ সাধনে, হস্ না রে মন ঠিক-হারা।” (পবিত্র লালন- ৯৩৩/৪)
২৬. “যেজন অনুরাগী হয়, রাগের দেশে যায়, রাগের তালা খুলে, সে রূপ দেখতে পায়, অনুরাগের করণ- বিধিবিধান, নিত্যলীলার পর রাগ নিহারা।” (পবিত্র লালন- ৯৭৭/২)
২৭. “যে নয় গুরু-রূপের আশ্রী, দুর্জন গিয়ে ভুলায় তারই, ধন্য যার রূপ নিহারি, রূপ দেখে কয় ঠিক বাগে।” (পবিত্র লালন- ৫২/৩)
২৮. “রতীর গিরা ফসখা মারা, শুধুই কথার ব্যবসা করা, তার কী হয় সে রূপ নিহারা, মিছে গোল বাঁধায়।” (পবিত্র লালন- ৭২১/২)
২৯. “ষড়রসিক বিনা কেবা তারে চেনে, যার নাম অধর, শাক্তশক্তি বুঝে সেরূপে মজে, বৈষ্ণবেরা বিষ্ণুরূপ নিহারা।” (পবিত্র লালন- ৯০০/১)
৩০. “সাদা ভাব তার সাদাকরণ, নাইরে কালামালা ধারণ, সে পঞ্চক্রিয়া সাঙ্গ করে, ঘরে রাত্রদিন নিহারা।” (পবিত্র লালন- ৮০৬/২)
৩১. “সাধন জোরে এ ভবে যার, স্বরূপ চক্ষে হয় নিহার, তারই বটে স্বরূপ সাকার, মিলে যথাতথা।” (পবিত্র লালন- ৭৬৭/৩)
৩২. “সামর্থ্যকে পূর্ণ জেনে, বসে আছো সে গুমানে, যে রতীতে জন্মে মোতি, সে রতীর বা কী আকৃতি, যারে বলে সুধাপতি, ত্রিলোকের সে নিহারা।” (পবিত্র লালন- ৬০৩/৩)
৩৩. “সিরাজ সাঁইজি বলে, সে মানুষ নিহার হলে, অন্তিমকালে পাবি লালন, সাঁইয়ের চরণখানা।” (পবিত্র লালন- ৮৭৭/৪)

নিহারের ওপর ১টি পূর্ণ লালন (A full Bolon on the espying)
মানুষ ধর রূপ নিহারে, মন-নয়নে যোগাযোগ করে।
নিহারায় চেহারা বন্দি, করো একান্তি,
সাড়ে চব্বিশ জেলায় করো ফন্দি,
পালাবে কোন শহরে, ত্বরায় দারোগা হয়ে,
বন্দি করো স্বরূপ মন্দিরে।
স্বরূপে আসন যার, পবন হিল্লোলে নিহার,
পক্ষান্তরে; দেখ এবার, দিব্যচক্ষু প্রকাশ করে,
সাঁই দ্বিপক্ষেতে খেলছে খেলা, নর-নারী রূপ ধরে।
অমাবস্যার পর পূর্ণমাসী, তাতে মহাযোগ প্রকাশি,
ইন্দ্রচাঁদ বাও বরুণাদি, সে যোগ বাঞ্ছা করে,
তাই ভেবে লালন কয়, মানুষ সাধনার প্রমাণরে।” (পবিত্র লালন- ৭৮২)

নিহারের সংজ্ঞা (Definition of espying)
বাঙালী শ্বরবিজ্ঞানে ও বাঙালী পুরাণে; কোনকিছুর প্রতি একনিবিষ্টতাকে রূপকার্থে নিহার বলে।

নিহারের আধ্যাত্মিক সংজ্ঞা (Theological definition of espying)
বাঙালী শ্বরবিজ্ঞানে ও বাঙালী পুরাণে; মৈথুনের সময়ে যথাযথভাবে অষ্টাঙ্গ ব্যবহার করে শুক্রপাত বন্ধ রাখার কৌশলকে মনোযোগ বা রূপকার্থে নিহার বলে।

নিহারের প্রকারভেদ (Variations of espying)
বাঙালী শ্বরবিজ্ঞানে ও বাঙালী পুরাণে; নিহার দুই প্রকার। যথা; ১. উপমান নিহার ও ২. উপমিত নিহার।

. উপমান নিহার (Analogical espying)
সাধারণত; কোনকিছুর প্রতি একনিবিষ্টতাকে মনোযোগ বা উপমান নিহার বলে।

. উপমিত নিহার (Compared espying)
বাঙালী শ্বরবিজ্ঞানে ও বাঙালী পুরাণে; মৈথুনের সময়ে যথাযথভাবে অষ্টাঙ্গ ব্যবহার করে শুক্রপাত বন্ধ রাখার কৌশলকে মনোযোগ বা উপমিত নিহার বলে।

নিহারের পরিচয় (Identity of espying)
এটি ‘বাঙালী পৌরাণিক চরিত্রায়ন সত্তা সারণী’ এর ‘মনোযোগ’ পরিবারের অধীন একটি ‘বাঙালী পৌরাণিক উপমান পরিভাষা’ বিশেষ। সাধারণত; কোনকিছুর প্রতি একনিবিষ্টতাকেই নিহার বলা হয় কিন্তু শ্বরবিজ্ঞানে; মৈথুনে শুক্রপাত বন্ধ রাখার সনাতনী কৌশলকে নিহার বলা হয়। অষ্টাঙ্গ যোগে এ নিহার প্রতিষ্ঠা করতে হয়। অথচ বড় হাস্যকর ব্যাপার হলো নিরীক্ষ বা নিহার বলতে অজ্ঞ গুরু গোঁসাইরা গুরুজনের মুখমণ্ডল বুঝেন এবং বুঝিয়ে থাকেন। গুরুর মুখমণ্ডলের ধ্যান করাকেই তারা উত্তম ধ্যান বলে থাকেন। ঐসব ভণ্ডরা স্বস্ব শিষ্য-ভক্তদের বলে দেন যে “সদা-সর্বদা গুরুর মুখমণ্ডল ধ্যান করবে এটাই তোমাদের জন্য বড় উপাসনা, এটাই তোমাদের জন্য নিহার এবং এটাই তোমাদের জন্য নিরীক্ষ।”

তথ্যসূত্র (References)

(Theology's number formula of omniscient theologian lordship Bolon)

১ মূলক সংখ্যা সূত্র (Radical number formula)
"আত্মদর্শনের বিষয়বস্তুর পরিমাণ দ্বারা নতুন মূলক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায়।"

রূপক সংখ্যা সূত্র (Metaphors number formula)

২ যোজক সূত্র (Adder formula)
"শ্বরবিজ্ঞানে ভিন্ন ভিন্ন মূলক সংখ্যা-সহগ যোগ করে নতুন যোজক রূপক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায়; কিন্তু, গণিতে ভিন্ন ভিন্ন সংখ্যা-সহগ যোগ করে নতুন রূপক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায় না।"

৩ গুণক সূত্র (Multiplier formula)
"শ্বরবিজ্ঞানে এক বা একাধিক মূলক-সংখ্যার গুণফল দ্বারা নতুন গুণক রূপক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায়; কিন্তু, মূলক সংখ্যার কোন পরিবর্তন হয় না।"

৪ স্থাপক সূত্র (Installer formula)
"শ্বরবিজ্ঞানে; এক বা একাধিক মূলক সংখ্যা ভিন্ন ভিন্ন ভাবে স্থাপন করে নতুন স্থাপক রূপক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায়; কিন্তু, মূলক সংখ্যার কোন পরিবর্তন হয় না।"

৫ শূন্যক সূত্র (Zero formula)
"শ্বরবিজ্ঞানে মূলক সংখ্যার ভিতরে ও ডানে শূন্য দিয়ে নতুন শূন্যক রূপক সংখ্যা সৃষ্টি করা যায়; কিন্তু, মূলক সংখ্যার কোন পরিবর্তন হয় না।"

< উৎস
[] উচ্চারণ ও ব্যুৎপত্তির জন্য ব্যবহৃত
() ব্যুৎপত্তির জন্য ব্যবহৃত
> থেকে
√ ধাতু
=> দ্রষ্টব্য
 পদান্তর
:-) লিঙ্গান্তর
 অতএব
× গুণ
+ যোগ
- বিয়োগ
÷ ভাগ

Here, at PrepBootstrap, we offer a great, 70% rate for each seller, regardless of any restrictions, such as volume, date of entry, etc.
There are a number of reasons why you should join us:
  • A great 70% flat rate for your items.
  • Fast response/approval times. Many sites take weeks to process a theme or template. And if it gets rejected, there is another iteration. We have aliminated this, and made the process very fast. It only takes up to 72 hours for a template/theme to get reviewed.
  • We are not an exclusive marketplace. This means that you can sell your items on PrepBootstrap, as well as on any other marketplate, and thus increase your earning potential.

পৌরাণিক চরিত্রায়ন সত্তা সারণী

উপস্থ (শিশ্ন-যোনি) কানাই,(যোনি) কামরস (যৌনরস) বলাই (শিশ্ন) বৈতরণী (যোনিপথ) ভগ (যোনিমুখ) কাম (সঙ্গম) অজ্ঞতা অন্যায় অশান্তি অবিশ্বাসী
অর্ধদ্বার আগধড় উপহার আশ্রম ভৃগু (জরায়ুমুখ) স্ফীতাঙ্গ (স্তন) চন্দ্রচেতনা (যৌনোত্তেজনা) আশীর্বাদ আয়ু ইঙ্গিত ডান
চক্ষু জরায়ু জীবনীশক্তি দেহযন্ত্র উপাসক কিশোরী অতীতকাহিনী জন্ম জ্ঞান তীর্থযাত্রা দেহাংশ
দেহ নর নরদেহ নারী দুগ্ধ কৈশোরকাল উপমা ন্যায় পবিত্রতা পাঁচশতশ্বাস পুরুষ
নাসিকা পঞ্চবায়ু পঞ্চরস পরকিনী নারীদেহ গর্ভকাল গবেষণা প্রকৃতপথ প্রয়াণ বন্ধু বর্তমানজন্ম
পালনকর্তা প্রসাদ প্রেমিক বসন পাছধড় প্রথমপ্রহর চিন্তা বাম বিনয় বিশ্বাসী ব্যর্থতা
বিদ্যুৎ বৃদ্ধা মানুষ মুষ্ক বার্ধক্য মুমুর্ষুতা পুরুষত্ব ভালোবাসা মন মোটাশিরা যৌবন
রজ রজপট্টি রজস্বলা শুক্র মূত্র যৌবনকাল মনোযোগ রজকাল শত্রু শান্তি শুক্রপাত
শুক্রপাতকারী শ্বাস সন্তান সৃষ্টিকর্তা শুক্রধর শেষপ্রহর মূলনীতি সন্তানপালন সপ্তকর্ম স্বভাব হাজারশ্বাস
ADVERTISEMENT
error: Content is protected !!